Showing the single result

ফিকহুল ইবাদাত

430.00৳ 
লেখক পরিচিতি- মক্কা শরীফের উম্মুল কুরা ইউনিভার্সিটি হতে আরবী ভাষা, তাফসীর ও হাদীস বিষয়ে সনদপ্রাপ্ত। উস্তায, ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগ, এশিয়ান ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশ। আলোচক, প্রভাতের ইসলামি অনুষ্ঠান, এটিএন বাংলা বইটি সম্পর্কে কিছু কথা: জীবনকে শুদ্ধ-সঠিক পথে পরিচালনার জন্য, আল্লাহর রাস্তায় পথ চলার জন্য শরী‘আর ইল্ম অর্জনের কোনো বিকল্প নাই। ডাক্তার না হয়ে ইঞ্জিনিয়ার হলে জীবন চলে, ইঞ্জিনিয়ার না হয়ে ব্যবসায়ী হলেও চলে, ব্যবসায়ী না হয়ে কৃষক হলেও চলে। এর কোনোটাই না হয়ে বেকার থাকলে কষ্টে হলেও জীবন চলে। কিন্তু ফিক্হ শাস্ত্রের জ্ঞান অর্জন ছাড়া এ জগৎ ও পরজগৎ কোনোটাই চলবে না। বরং, পরপার হবে বিভিষিকাময়। তাই, এই শাস্ত্রের জ্ঞান অর্জন ফরজে আইন- সকলের জন্য, সকল নারী-পুরুষের জন্য, ছোট ও বড়দের জন্য। পরপারের যাত্রা শুভ ও সুন্দর করার জন্য। যারা তা শিখবে তারা হবে আল্লাহর কাছে সবিশেষ মর্যাদাপ্রাপ্ত। জীবনের পরতে পরতে পবিত্রতা, সালাত, সওম, যাকাত ও হজ্জ- এ বিষয়গুলো আষ্টেপিষ্ঠে জড়িত। এগুলো শুদ্ধ হলে জীবন শুদ্ধ, আর এতে ভুল হলে জীবন হয় ভুল, ফলে পরিণাম হয় মারাত্মক। এ জন্যই এ গ্রন্থটি প্রণয়ন এবং বিষয়গুলো একত্রে সন্নিবেশ করা হয়েছে। কিন্তু এগুলোর শুদ্ধাশুদ্ধি যাচাই ও বাছাইয়ে রয়েছে মতানৈক্য, মতবিরোধ, ইখতিলাফ ও দ্বিমত। শুরু হয়েছে সাহাবায়ে কেরামের যামানা থেকে। চলছে আজও, চলবে কিয়ামত পর্যন্ত। বিগত তিন যুগেরও বেশি সময় ধরে কুরআন-হাদীস ও ফিক্হ শাস্ত্র অধ্যয়ন ও পাঠদানের সাথে সম্পৃক্ত থাকার তাওফিক আল্লাহ তাআলা করে দিয়েছেন। মহান আল্লাহর দয়ায় মক্কার উম্মুলকুরা ইউনির্ভাসিটিতে অধ্যয়ন ও কাবা শরীফের ক’জন ইমামের ছাত্র হওয়ার সুবাদে এশিয়া ও আফ্রিকা এবং আরব ও আজমের অনেক বিজ্ঞ উলামায়ে কিরামের সান্নিধ্যে উঠা-বসার সুযোগ হয়েছে। ফিক্হী মাসআলা নিয়ে মতবিনিময় ও আলোচনা-পর্যালোচনায় সুযোগ হয়েছে। তাছাড়া মক্কা শরীফের উম্মুলকুরা ইউনিভার্সিটিতে প্রথমেই ফিক্হ পড়ি একজন হানাফী উস্তাযের কাছে। এরপর মালেকী, শাফেয়ী ও হাম্বলী উস্তাযগণের কাছে ফিক্হ ও কুরআন-হাদীস অধ্যয়ন করি। দেখেছি, তাদের উদারতা, জ্ঞানের গভীরতা এবং পাণ্ডিত্য। এ গ্রন্থে কোনো দল-উপদলের প্রতি প্রভাবিত হয়ে একতরফাভাবে কোনো কিছু লিখা হয়নি। যেটাকেই সত্যের অধিকতর কাছাকাছি দেখেছি সেটিকেই প্রাধান্য দিয়েছি; কারো অন্ধ সমর্থন করে নয়। কোনো কোনো মাসআলা কারো কারো কাছে নতুন মনে হতে পারে। কিন্তু আমি সহীহ হাদীসকে প্রাধান্য দিয়েই তা লিখেছি। কোনো হাদীসকে তো আমি গোপন করতে পারি না।